Thursday, June 13, 2024
Home জাতীয় নরসিংদীতে দক্ষিণ এশিয়ার সর্ববৃহৎ সার কারখানা উদ্বোধন

নরসিংদীতে দক্ষিণ এশিয়ার সর্ববৃহৎ সার কারখানা উদ্বোধন

নরসিংদীর পলাশে দক্ষিণ এশিয়ার সবচেয়ে বড় সার কারখানা ঘোড়াশাল-পলাশ ইউরিয়া সার কারখানা (জিপিইউএফএফ) উদ্বোধন করেছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। উদ্বোধন উপলক্ষ্যে তিনি স্মারক ডাকটিকিট, উদ্বোধনী খাম ও সিলমোহর অবমুক্ত করেন। রোববার উদ্বোধনের পর সার উৎপাদন কার্যক্রমসহ প্রকল্পটির বিভিন্ন এলাকা তিনি ঘুরে দেখেন। কারখানা উদ্বোধন করে নাগরিক সমাবেশে তিনি প্রধান অতিথির ভাষণ দেন। এরপর নরসিংদী মোসলেহউদ্দিন ভূঁইয়া স্টেডিয়ামের জনসভায় তিনি যোগ দেন। দুপুরে প্রধানমন্ত্রী কারখানা চত্বরের অনুষ্ঠানস্থলে পৌঁছলে নৃত্য পরিবেশনের মাধ্যমে তাকে অভ্যর্থনা জানানো হয়। এ সময় উপস্থিত ছিলেন শিল্পমন্ত্রী নূরুল মজিদ মাহমুদ হুমায়ুন ও ডাক টেলিযোগাযোগমন্ত্রী মোস্তাফা জব্বার, শিল্প প্রতিমন্ত্রী কামাল মজুমদার, পলাশ আসনের এমপি ডা. আনোয়ারুল আশ্রাফ খান দীলিপ প্রমুখ।

নাগরিক সমাবেশে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বলেন, প্রাকৃতিক দুর্যোগের মতো অগ্নিসন্ত্রাস বা মানবসৃষ্ট সব দুর্যোগ অতিক্রম করে বাংলাদেশকে এগিয়ে নিতে হবে। যে কোনো পরিস্থিতি সাহসের সঙ্গে মোকাবিলা করতে তিনি দেশবাসীর প্রতি আহ্বান জানান। তিনি বলেন, বিএনপি সরকারের আমলে কৃষকরা সারের জন্য আন্দোলন করেছিল। সার চাওয়ার কারণে গাইবান্ধার মহিমাগঞ্জ এবং টাঙ্গাইলের ঘাটাইলসহ বিভিন্ন স্থানে কৃষককে গুলি করে হত্যা করা হয়। তিনি বলেন, ২০০৯ সালে সরকারে আসার পর যত কষ্টই হোক সারের কোনো ঘাটতি আমরা হতে দেইনি।

চাঁপাইনবাবগঞ্জের কানসার্টে বিদ্যুতের দাবিতে আন্দোলনরতদের ওপর গুলি চালিয়ে ২০ জনকে হত্যার প্রসঙ্গ উল্লেখ করে শেখ হাসিনা বলেন, তার সরকার ক্ষমতায় আসার পর সেখানে বেসরকারি খাতে একটি এবং সরকারিভাবে একটি বিদ্যুৎকেন্দ্র করে দিয়েছে। কিন্তু দুর্ভাগ্য ২০১৩ সালে বিএনপি আজকের মতন অগ্নিসন্ত্রাস শুরু করে এবং বিদ্যুৎকেন্দ্র পুড়িয়ে দেয়। কর্মরত প্রকৌশলী সেই আগুনে পুড়ে মারা যান। এভাবে দেশের সম্পদ সে সময় একে একে তারা ধ্বংস করে। এখন আবারও তখনকার মতো অগ্নিসন্ত্রাস তারা শুরু করেছে। তিনি বলেন, আমি জানি না তাদের চেতনা কবে ফিরবে বা দেশের মানুষের প্রতি দায়িত্ববোধ আসবে?

দেশি-বিদেশি চক্রান্তে ২০০১ সালে আওয়ামী লীগ ক্ষমতায় আসতে পারেনি উল্লেখ করে শেখ হাসিনা বলেন, তখন বিএনপি চেয়ারপারসন খালেদা জিয়া গ্যাস বিক্রির মুছলেকা দিয়েছিলেন। আর তিনি (শেখ হাসিনা) তা না করে বলেছিলেন, আমাদের কী পরিমাণ গ্যাসের রিজার্ভ আছে তার অ্যাসেসমেন্ট করে দিতে, এরপর তিনি সিদ্ধান্ত নেবেন। কেননা দেশের সম্পদ আগে দেশের মানুষের কাজে লাগাতে হবে। সেদিন সেই চক্রান্তে সায় দিলে আজকে এ সার কারখানা করতে পারতেন না বলেও তিনি উল্লেখ করেন। তিনি বলেন, দেশের সম্পদ বিক্রি করে ক্ষমতায় যেতে হবে বঙ্গবন্ধুর মেয়ে সেই দৈন্যতায় ভোগে না। ক্ষমতা তার জন্য বড় কিছু নয়, দেশের মানুষের কল্যাণই বড়। অনুষ্ঠানে বক্তৃতা করেন শিল্পমন্ত্রী নূরুল মজিদ মাহমুদ হুমায়ুন, প্রতিমন্ত্রী কামাল আহমেদ মজুমদার, স্থানীয় সংসদ-সদস্য আনোয়ারুল আশরাফ খান ও শিল্প মন্ত্রণালয়ের সিনিয়র সচিব জাকিয়া সুলতানা প্রমুখ।

সার কারখানাটি উদ্বোধনের মধ্য দিয়ে বাংলাদেশে নতুন দিগন্তের সূচনা হলো। দেশে সারের ঘাটতি পূরণের পাশাপাশি আমদানিনির্ভরতাও কমবে। ১১০ একর জমিতে ১৫ হাজার ৫০০ কোটি টাকা ব্যয়ে প্রকল্পটি বাস্তবায়ন করা হয়। এখানে দৈনিক ২ হাজার ৮০০ মেট্রিক টন ইউরিয়ার সার উৎপাদন হবে। এছাড়া কারখানাটিতে প্রত্যক্ষ ও পরোক্ষভাবে কয়েক হাজার মানুষের কর্মসংস্থান হবে। দেশের কৃষি খাতে বৈপ্লবিক পরিবর্তন হবে।

শিল্প মন্ত্রণালয় সূত্র জানায়, ২০১৮ সালের ২৪ অক্টোবর উচ্চক্ষমতাসম্পন্ন, শক্তিসাশ্রয়ী, পরিবেশবান্ধব ও আধুনিক প্রযুক্তিনির্ভর সার কারখানা নির্মাণের উদ্যোগ নেয় সরকার। ১১০ একর জমির ওপর নির্মিত প্রকল্পের ব্যয় ১৫ হাজার ৫০০ কোটি টাকা ধরা হয়। ২০২২ সালের ২১ এপ্রিল গণভবন থেকে ভার্চুয়ালি প্রকল্পের ভিত্তিপ্রস্তর স্থাপন করেন শেখ হাসিনা। চীনা কোম্পানি সিসি সেভেন এবং জাপানি ঠিকাদারি প্রতিষ্ঠান মিতসুবিশি হেভি ইন্ডাস্ট্রিজ লিমিটেড প্রকল্প বাস্তবায়নের দায়িত্ব পায়। ২০২৩ সালের ডিসেম্বরে নির্মাণকাজ শেষ হওয়ার কথা থাকলেও দুই মাস আগে এর কাজ শেষ হয়। কারখানাটি পরীক্ষামূলক সার উৎপাদন করছে। কারখানার বার্ষিক উৎপাদন ক্ষমতা প্রায় ১০ লাখ মেট্রিক টন। এখানে প্রতিদিন ২ হাজার ৮০০ মেট্রিক টন ইউরিয়া উৎপাদন হবে। এখানে প্রত্যক্ষ ও পরোক্ষভাবে প্রায় ৩০ হাজার মানুষের কর্মসংস্থান হবে।

নিউজটি শেয়ার করুন -

আজকের জনপ্রিয়

কুসিক এর দায়িত্ব নিলেন মেয়র ডা. তাহসিন বাহার সূচনা

  কুমিল্লার কথা : কুমিল্লা সিটি করপোরেশনের মেয়র ডা. তাহসিন বাহার সূচনা আনুষ্ঠানিক দায়িত্ব গ্রহণ করেছেন। আনুষ্ঠনিকভাবে কুমিল্লা সিটি কর্পোরেশনের দায়িত্ব বুঝে নেওয়ার পর সোমবার...

সেনাসদস্যের উৎকর্ষতা অর্জনে ফায়ারিং এ দক্ষতা অত্যন্ত জরুরি – সেনাবাহিনী প্রধান

কুমিল্লার কথা : বাংলাদেশ সেনাবাহিনী ফায়ারিং প্রতিযোগিতা-২০২৪ এর সমাপনী ও পুরস্কার বিতরণী অনুষ্ঠান সোমবার (১১ মার্চ) কুমিল্লা সেনানিবাসের ক্ষুদ্রাস্ত্র ফায়ারিং রেঞ্জে অনুষ্ঠিত হয়। অনুষ্ঠানে সেনাবাহিনী...

ফ্রেন্ডশীপ কাপ খেলতে ভারতের আগরতলা সফরে কুমিল্লা জেলা করাতে দল

কথা স্পোটর্স : ইন্ডিয়া-বাংলাদেশ স্পোটর্স ফ্রেন্ডশীপ ফোরাম ও কুমিল্লা জেলা ক্রীড়া সংস্থার উদ্যোগে ফেন্ডশীপ কাপ কারাতে প্রতিযোগিতায় অংশ নিতে দুই দিনের ভারতের ত্রিপুরা রাজ্যের...

কুমিল্লা ক্রীড়া সংস্থা পরিদর্শন করেন ক্রীড়া পরিষদের সচিব আমিনুল ইসলাম

কুমিল্লার কথা : কুমিল্লা জেলা ক্রীড়া সংস্থা পরিদর্শন করেন জাতীয় ক্রীড়া পরিষদের সচিব মো: আমিনুল ইসলাম, এনডিসি। শনিবার ( ২৭ জানুয়ারি ) ১১ টায়...
নিউজটি শেয়ার করুন -